রংপুরে বাড়ছে নেপিয়ার ঘাসের চাষ

28

রংপুর বিভাগে গবাদি পশুর দানাদার খাদ্যের দাম বেশি হওয়ায় খড় ও নেপিয়ার ঘাসে ঝুঁকছে রংপুরের গবাদি পশুর খামারিরা। ফিড সিন্ডিকেটের কারণে খরচ বেশি হওয়ায় এবং খামার লাভ না হওয়ায় প্রাকৃতিক উপায়ে কাঁচা ঘাস ও খড়ের ওপর নির্ভরতা বাড়ছে। ফলে কম খরচে বেশি লাভের ঘাস চাষ বাড়ছে রংপুর বিভাগের আটান্নটি উপজেলা ও গ্রামে গ্রামে। বাড়ি বাড়ি, খামারে খামারে প্রাকৃতিক উপায়ে গবাদি পশু পালনে ব্যস্ত খামারিরা।

দরিদ্র ও কর্মসংস্থানে পিছিয়ে থাকা রংপুর অঞ্চলে পশু পালনের মাধ্যমে বাড়ছে কর্মসংস্থান ও আত্মনির্ভরশীলতা। কিন্তু ব্যবসায়ীদের ফিড সিন্ডিকেটের কারণে লাভ করতে হিমশিম খাওয়ায় দানাদার খাদ্যের ওপর নির্ভরশীলতা দিন দিন কমছে।

ঘাস চাষি ও খামারি আজিজুল ইসলাম বলেন, রংপুরের কয়েক লাখ শিক্ষিত বেকার ও ধান চাষে ক্ষতিগ্রস্তরা খামার গড়ে লাভবান হচ্ছেন। কর্মসংস্থানের সুযোগ হয়েছে কয়েক হাজার খামারে। ফিড সিন্ডিকেট ভাঙতে খামারিরা কমিয়েছেন দানাদার খাবার। বাড়িয়েছেন নেপিয়ার ঘাস। খরচ কম হওয়ায় এবং তিন মাস পরপর বেচার সুযোগে স্বল্প পুঁজির অনেকেই বাড়িছেন নেপিয়ার ঘাসের চাষ।

রংপুর জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা মো. শাহ জালাল খন্দকার বলেন, দানাদার খাদ্যের ওপর নির্ভরতা কমিয়ে আনছেন খামারিরা। তারা প্রাকৃতিক উপায়ে গবাদি পশুর খাবার প্রস্তুত করছেন। কাঁচা ঘাসে তাদের আগ্রহ বেশি বলেও জানান জেলার এ প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা।

Facebook Comments