বিশ্ববিদ্যালয়গুলো মনোযোগী শুধু অবকাঠামো উন্নয়নে

24

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান কাজ হচ্ছে গবেষণার মাধ্যমে জ্ঞান সৃষ্টি করা। কিন্তু ল্যাবরেটরি কিংবা গবেষণায় উদাসীন হলেও অবকাঠামো নির্মাণে ব্যতিব্যস্ত দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো। অপরিকল্পিতভাবে শিক্ষার্থী সংখ্যা বৃদ্ধি, অপ্রয়োজনীয় বিভাগ চালু, নিয়োগ বাণিজ্য নানা অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। দেশে বর্তমানে ৪৯টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। সম্প্রতি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) সভায় এ বিষয়টি নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ওই বৈঠকে সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন প্রকল্প প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, শুধুমাত্র অবকাঠামো নির্মাণের জন্য প্রকল্পটি প্রস্তাব করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবরেটরি কিংবা গবেষণা কাজের জন্য কোনো সুনির্দিষ্ট কাজের প্রস্তাব করা হয়নি। তিনি আরও বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা অপরিকল্পিতভাবে বৃদ্ধি করা থাকে। একাডেমিক ও প্রশাসনিক ব্যবস্থাপনা, শিক্ষক সংখ্যা, আবাসন ব্যবস্থা ইত্যাদি যাবতীয় বিষয় বিবেচনা করে মানসম্মত শিক্ষাদানের উপযোগী সংখ্যক ছাত্রছাত্রী ভর্তি করা প্রয়োজন।

জানা গেছে, সরকারি অর্থায়নে ৯৮৭ কোটি ৭৯ লাখ টাকা প্রাক্কলিত ব্যয়ে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকতর উন্নয়ন শীর্ষক প্রকল্পটি অনুমোদন দেওয়া হয়। এর মেয়াদ হচ্ছে ১ জুলাই থেকে ২০২২ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। এই প্রকল্পের আওতায় ১০তলা বিশিষ্ট একটি ছাত্র হল ও একটি ছাত্রী হল, সাত তলা বিশিষ্ট গ্রাজুয়েট ও বিদেশি ছাত্রদের জন্য হল, শিক্ষক ও কর্মকর্তাদের জন্য ৪টি আবাসিক ভবন (প্রতিটি ১১তলা ভিত বিশিষ্ট ১১তলা), কর্মচারীদের জন্য ৪টি আবাসিক ভবন (প্রতিটি ১১তলা ভিত বিশিষ্ট ১১তলা), ভৌত বিজ্ঞান, কৃষি ও খনিজ বিজ্ঞান বিষয়ক বিভাগের জন্য একাডেমিক ভবন নির্মাণ, ব্যবস্থাপনা ও ব্যবসায় প্রশাসন, বাংলা, ইংরেজি ও আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটের জন্য একাডেমিক ভবন, শাবি স্কুল ও কলেজের ভবন, ক্লাব কমপ্লেক্স ভবন, মসজিদ নির্মাণ, সৌর প্যানেল স্থাপন এবং আসবাবপত্র ক্রয় করা হবে।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে দেশে সর্বপ্রথম ১৯৯১ সালে সিলেটে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করে। বর্তমানে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ৬টি অনুষদের অধীনে ২৭টি বিভাগ ও ২টি ইনস্টিটিউট রয়েছে। এতে ১১ হাজার শিক্ষার্থী লেখাপড়া করছেন।

প্রকল্পটিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের অবকাঠামো উন্নয়নে জোর দেওয়া হয়েছে। এ প্রসঙ্গে উচ্চশিক্ষা তদারকি প্রতিষ্ঠান বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) সূত্রে জানা গেছে, দেশের বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে মেগা প্রকল্প চলমান রয়েছে। যার সিংহভাগ অবকাঠামো নির্মাণ।

এ প্রসঙ্গে ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ বলেন, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে নানা অভিযোগ রয়েছে। যোগ্য ও মেধাবীদের যথাযথ স্থানে বসালে এই অভিযোগ অনেক কমে আসবে বলে তিনি মনে করেন। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে গবেষণার ক্ষেত্র বাড়ছে বলেও তিনি মনে করেন।

Facebook Comments