জামালগঞ্জর সাচনা বাজারে অবৈধ দোকানপাট পুনঃরায় উচ্ছেদ

55

মোঃ আবুল কালাম জাকারিয়া,

সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলার ঐতিহ্যবাহী সাচনা বাজার গলির অবৈধ দোকানপাট উচ্ছেদ করা হয়েছে। প্রায় চৌদ্দ মাস আগে সাবেক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম আল ইমরান সাচনা বাজার ইউনিয়ন পরিষদ, সাচনা বাজার বনিক সমিতি ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সহযোগিতায় প্রায় ৪০ বছরের পুরানা অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করে গল্লির মাঝখানে ডিভাইডার স্থাপন করে জনসাধারণের চলাচলের ব্যবস্থা করা হয়ছিলো। কিন্তু কিছুদিন যেতে না যেতেই আবারও অবৈধ দখলদারদের দখলে চলে যায় বাজারের গলিটি। এছাড়া বাজার দখলের ফলে জরুরী যাত্রীবাহী সিএনজি, অটোবাইক, মালবাহী পিকআপ ও মুমূর্ষু রোগীবাহী এম্বুলেন্স বাজারে প্রবেশ করতে না পারায় ব্যবসায়ী,স্কুল,কলেজ,মাদরাসা শিক্ষার্থী ও বাজারমুখী জনসাধারণ চরম ভোগান্তির শিকার হয়ে আসছিলো।

সম্প্রতি জেলা প্রশাসক মো. আব্দুল আহাদ বজ্রপাতে নিহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাতে জামালগঞ্জে আসলে তিনি গাড়ি নিয়ে বাজারে প্রবেশ করতে পারনেনি। জেলা প্রশাসক পুনঃরায় বাজার দখলের বাস্তব চিত্র নিজ চোখে দেখে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রিয়াংকা পালকে বাজারের রাস্তা এবং সরকারি জায়গায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের নির্দশনা প্রদান করেন। তারই প্রক্ষিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাচনা বাজারের সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের উদ্যাগ নিলে সামনে ঈদুল আযহার বাজার থাকায় মানবিক দিক বিবেচনা করে বাজারের ভাসমান ব্যবসায়ীদের অনুরোধে বিষয়টি বিবেচনা করে ঈদ পর্যন্ত ব্যবসা চালিয়ে যাওয়ার মৌখিক অনুমতি প্রদান করেন।

গত শনিবার উপজেলা প্রশাসনের উদ্যাগে মাইকিং করে সকল অবৈধ ব্যবসায়ীদের গলি ছাড়ার আদেশ দেওয়া হয়। তারই প্রক্ষিতে পরদিন রবিবার সকাল ১১টায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়। আদালত পরিচালনা করেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আয়েশা আক্তার। ভ্রাম্যমান আদালতে অবৈধভাবে গলি দখলের অভিযোগে দু’জনের কাছ থেকে ৪ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। দ-বিধির ১৮৬০-এর ২৯১ ধারা মোতাবক জামালগঞ্জ উত্তর ইউনিয়নের সাচনা গ্রামের আব্দু মিয়ার ছেলে মো. নূর মিয়া (৫০) কে ২ হাজার এবং বেহেলী ইউনিয়নের রহিমাপুর গ্রামের যুগেন্দ্র রায়ের ছেলে অর্জুন রায় (৩৬) কে ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ সময় তাঁর সাথে উপস্থিত ছিলেন, ভূমি অফিস সহকারী অজয় চন্দ্র দাস ও এসআই বাদলসহ সঙ্গীয় ফোর্স।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রিয়াংকা পাল বলেন, জনস্বার্থে সাচনা বাজার ও জামালগঞ্জসহ অন্যান্য বাজারের সরকারি জায়গা ও রাস্তায় থাকা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

Facebook Comments