এই সানাই, সেই সানাই

28

বড় পর্দায় এখন পর্যন্ত কোন চলচ্চিত্র মুক্তি না পেলেও বর্তমানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক আলোচনার নাম সানাই যার পুরো নাম সুপ্রভা মাহবুব বিনতে সানাই। দেশের বহুল আলোচিত-সমালোচিত মডেল ও বিতর্কিত এই অভিনেত্রী বিভিন্ন কারণে কিছুদিন পর পর আলোচনায় আসেন তিনি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপেশাদার ছবি প্রকাশ করে বিতর্কিত হন। নিজের দেহবল্লরি আরো আকর্ষনীয় করে তুলতে ৩৫ লাখ টাকা খরচে থাইল্যান্ড থেকে ব্রেস্ট ইমপ্ল্যান্টের মাধ্যমে স্তনের আকার ৩৬ থেকে ৪৪ ইঞ্চিতে বৃদ্ধি করেন। আর এ নিয়ে চারদিকে হৈ চৈ ফেলে দিয়েছেন।

নিজেকে অশ্লীল ভঙ্গিতে উপস্থানপন করেই আলোচনায় আসার চেষ্টা করছেন তিনি। এর প্রমাণ তার অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে খোলামালা পোশাকের লাইভ ভিডিও গুলো আর বিভিন্ন ইউটিউব চ্যানেলের ইন্টারভিউতে।

সম্প্রতি চার বছর আগের একটি এবং চলতি বছরের একটি ছবি পোস্ট করে সানাই তার ফেসবুকে লিখেছেন, জন্মদিনের আগে আমি এটা পোস্ট না দিয়ে থাকতেই পারলাম না। প্রথম ছবিটা ২০১৫ সালে আমার স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির (ধানমন্ডি ক্যাম্পাস) এর সামনে তোলা। পরেরটা ২০১৯ সালে স্টুডিওতে তোলা। কি দারুণ লাইফ!

উল্লেখ্য, সানাই এর জন্ম ঢাকার ধানমন্ডিতে হলেও তার পৈত্রিক নিবাস নীলফামারিতে। পড়াশোনার জন্য তিনি বেশ কিছুদিন রংপুরে ছিলেন। তার বাবা-মা উচ্চপদস্থ বেসরকারী কর্মকর্তা। সানাই এখন ঢাকায় স্থায়ীভাবে বসবাস করেন। নাবিলা, স্মার্টেক্স, নাগরদোলা ইত্যাদি ফ্যাশন হাউজে মডেল হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন তিনি। জনপ্রিয়তা পাওয়ার পর বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলে উপস্থাপিকা হিসেবেও কাজ করেছেন।

এরপর ২০১৬ সালের নভেম্বর মাসে ঢাকার গুলশান ক্লাবে একটু ফ্যাশন শো চলাকালীন সময়ে বাংলাদেশী চলচ্চিত্র নির্মাতা গাজী মাহবুবের সাথে সানাই এর পরিচয় হয়। গাজী মাহবুব তখন তার নির্মানাধীন চলচ্চিত্র ভালোবাসা ২৪×৭ এর জন্য সানাইকে চিত্রনায়িকা হিসেবে পছন্দ করেন। এই চলচ্চিত্রে সানাই এর বিপরীতে অভিনয় করেন জায়েদ খান। এরপর তিনি সুপ্ত আগুন, সাহসী যোদ্ধা, ময়নার ইতিকথা, প্রতিশোধ, প্রতীক্ষাসহ প্রায় ৮টি চলচ্চিত্রে চিত্রনায়িকা হিসেবে অভিনয় করার জন্য চুক্তিবদ্ধ হন।

Facebook Comments