এই মৌসুমটা আমার হতে যাচ্ছে: রদ্রিগেজ

38

ব্রাজিল তারকা নেইমারকে পেতে ১০০ মিলিয়ন ইউরোর পাশাপাশি গ্যারেথ বেল, জেমস রদ্রিগেজ ও কেইলর নাভাসকে দিতে চেয়েছিল রিয়াল মাদ্রিদ। কিন্তু রিয়াল মাদ্রিদের লোভনীয় এই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছে পিএসজি। এদিকে, রদ্রিগেজও ছাড়তে চাননি রিয়ালের ড্রেসিং রুম।

কলম্বিয়ার জেমস রদ্রিগেজের যেখানে দলে থাকা নিয়েই অবাক হয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের সমর্থকরা, সেখানে কলম্বিয়ান এই ফুটবলার জানাচ্ছেন, চলতি মৌসুমটা তারই হবে। ২৮ বছর বয়সী এই মিডফিল্ডার জানিয়ে দিলেন, এই মৌসুমে রিয়ালের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় হয়েই থাকবেন তিনি।

লা লিগায় রিয়ালের নগর প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ আর ইতালির ক্লাব নাপোলি রদ্রিগেজের দিকে আগ্রহ দেখিয়েছিল। তবে, জিনেদিন জিদান দল গোছানোর চিন্তায় রেখে দিয়েছেন রদ্রিগেজকে।

২০১৪ সালে মোনাকো থেকে রদ্রিগেজকে কিনে আনে রিয়াল। ২০১৭ সালে তাকে ধারে খেলতে পাঠায় জার্মান জায়ান্ট বায়ার্ন মিউনিখে। রিয়ালে যোগ দেওয়ার পর বেশিরভাগ সময় মূল একাদশে জায়গা হয়নি রদ্রিগেজের। রোনালদো-বেল-বেনজেমাদের মাঝে নিজেকে হারিয়ে খুঁঝতে থাকেন। ক্যারিয়ার বাঁচাতে অনেকটা বাধ্য হয়ে রিয়াল মাদ্রিদ থেকে বায়ার্ন মিউনিখে ধারে খেলতে যান। জার্মানিতে গিয়ে বাভারিয়ানদের হয়ে রদ্রিগেজ যেভাবে খেলেছেন, তাতে গা জ্বলে গিয়েছিল রিয়াল সমর্থকদের। জিদানের দিকে আঙুল তুলেছিলেন কেউ কেউ।

চলতি মৌসুমে রিয়ালের জার্সিতে টিকে যাওয়া রদ্রিগেজ জানান, ‘আমি সত্যিই আশা করছি ভালো কিছুর। এই মৌসুমটা রিয়ালের জার্সিতে আমারই হতে যাচ্ছে। রিয়ালের ড্রেসিং রুমে দীর্ঘ সময় পর ফিরেছি। এটা দারুণ এক অনুভূতি। সমর্থকদের পাশে থাকার জন্য অনেক ধন্যবাদ। দলের উন্নতির জন্য আমরা একসঙ্গে কাজ করে যাচ্ছি।’
বিজ্ঞাপন

দুই বছর পর রিয়াল মাদ্রিদের জার্সিতে মাঠে নামাটা সুখকর হয়নি রদ্রিগেজের। রিয়াল ভায়াদোলিদের বিপক্ষে ড্রয়ের ম্যাচে চোটকে সঙ্গী করেছেন কলম্বিয়ান এই তারকা। দুই বছর ধারে বায়ার্ন মিউনিখে খেলে আসার পর রিয়ালের হয়ে মাঠে নেমে প্রথম ম্যাচেই চোট পান রদ্রিগেজ। ইনজুরিতে থাকা এই কলম্বিয়ান ব্রাজিল আর ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে নিজ দেশের হয়ে খেলতে পারেননি। রিয়ালের পরের ম্যাচে দেখা যেতে পারে তাকে। লা লিগায় আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর রিয়ালের প্রতিপক্ষ লেভান্তে। প্রথম তিন ম্যাচের একটিতে জিতলেও শেষ দুই ম্যাচে ড্র করেছে জিদান শিষ্যরা। টেবিলের শীর্ষে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ।

Facebook Comments